ঢাবির প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় ছাপাখানা থেকে

ঢাবির প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় ছাপাখানা থেকে


ঢাবির প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় ছাপাখানা থেকেবিশেষ প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় প্রেস (ছাপাখানা)  থেকে। ঢাবির ‘ঘ’ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ছাপা হতো রাজধানীর ইন্দিরা রোডের একটি প্রেসে। আর ওই প্রেসের কর্মচারী খানা বাহাদুরের মাধ্যমেই প্রশ্নপত্র  ফাঁস হতো। আর সরবরাহ করতো নাটের ও পাবনা জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা রকিবুল হাসান।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মালিবাগ সিআইডি দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (এসএস) মোল্যা নজরুল ইসলাম।

প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৭ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত খান বাহাদুরসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ দমন শাখা সিআইডি। এদের মধ্যে ৫ জন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে।  

বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম জানান, ১৩ ডিসেম্বর বুধবার জামালপুর থেকে সাইফুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ফার্মগেটের ইন্দিরা রোড থেকে গ্রেফতার করা হয় প্রেস কর্মচারী খান বাহাদুরকে।

তিনি বলেন, খান বাহাদুরকে গ্রেফতারের মধ্যে দিয়ে এই চক্রের মূলোৎপাটন করা হয়েছে। এই চক্রের ‘শীর্ষে’থাকা পাবনা জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা রকিবুল হাসান ইসামীও পুলিশের হেফাজতে আছেন উল্লেখ করে নজরুল জানান, প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে গত তিন মাসে মোট ২৩ জনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি।

বিশেষ পুলিশ সুপার বলেন, বাহাদুরের সঙ্গে সাইফুল ইসলামের পরিচয় ছিল। সাইফুলের সঙ্গে পরিচয় ছিল রকিবুল হাসান ইসামীর। মূলত এই তিনজন প্রশ্ন  বিভিন্ন জায়গায় ছড়াতেন। এই তিনজনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।

মোল্যা নজরুল ইসলাম বলেন, এর আগে প্রশ্নপত্র ফাঁস ও ডিভাইস সাপ্লাই পদ্ধতিতে ঢাবিতে ভর্তি হওয়া ৭  শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের  প্রক্টোরিয়াল টিমের সহায়তায় গ্রেফতার তরা হয়। আর গত ৭ ডিসেম্বর  রাজধানীর জিগাতলা থেকে  গ্রেফতার করা ডিভাইস সাপ্লাই ও প্রশ্ন ফাঁস করা  গ্রুপের অন্যতম অন্যতম নাজমুল হাসান নাঈমকে।  পরে ৯ ডিসেম্বর  রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল এলাকা থেকে বনি ইসরাইল ও বিনোদপুর এলাকা থেকে  মারুফকে গ্রেফতার করা হয়। বনি ও মারুফ দুজনই ছাত্র সংগ্রহ  ও তাদের তথ্য সংগ্রহ করত রকিবুল হাসান ইসামী।

তিনি আরো  বলেন, রকিবুল হাসান ইসামী নাটোর ও পাবনা জেলার ক্রীড়া কর্মকর্তা। গত ১১ ডিসেম্বর রাজশাহী তার বড়ভাই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসার সামসুজ্জোহা ও গুরুদাশপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আমজাদে হোসেনের জিম্মা হতে গ্রেফতার করা হয়। পরের দিন রকিবুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। রকিবুলের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ১৩ ডিসেম্বর  জামালপুর থেকে সাইফুলকে গ্রেফতার করা হয়।  

প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে প্রত্যেক  শিক্ষার্থীর কাছ থেকে দুই  থেকে সাত লাখ টাকার লেনদেন হতো উল্লেখ করে মোল্যা নজরুল ইলালাম বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যার মধ্যে গত ৭ ডিসেম্বর থেকে এ পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচজন কারাগারে, তিনজন রিমান্ডে এবং ২ জন গ্রেফতার আছেন।

ইত্তেফাক/ইউবি

(function() {
var referer=””;try{if(referer=document.referrer,”undefined”==typeof referer)throw”undefined”}catch(exception){referer=document.location.href,(“”==referer||”undefined”==typeof referer)&&(referer=document.URL)}referer=referer.substr(0,700);
var rcel = document.createElement(“script”);
rcel.id = ‘rc_’ + Math.floor(Math.random() * 1000);
rcel.type = ‘text/javascript’;
rcel.src = “http://trends.revcontent.com/serve.js.php?w=75227&t=”+rcel.id+”&c=”+(new Date()).getTime()+”&width=”+(window.outerWidth || document.documentElement.clientWidth)+”&referer=”+referer;
rcel.async = true;
var rcds = document.getElementById(“rcjsload_83982d”); rcds.appendChild(rcel);
})();

© ittefaq.com.bd



Source link

কলকাতায় শুরু মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব


কলকাতায় আজ শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব। পাঁচ দিনব্যাপী আয়োজিত এই বিজয় উৎসবের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। আজ বিকেলে কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশন চত্বরে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী যুদ্ধের স্মৃতিচারণা করে বলেন, সেদিন বাংলাদেশের মানুষ এক হয়ে লড়েছিল পাকিস্তানি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে। তারপর দীর্ঘ ৯… বিস্তারিত



Source link

জেরুজালেম ইস্যুতে মুসলিম দেশগুলোর নিশ্চুপ থাকার সুযোগ নেই: রাষ্ট্রপতি



জেরুজালেম ইস্যুতে মুসলিম দেশগুলোর নিশ্চুপ থাকার কোনো সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। বুধবার তুরস্কের ইস্তাম্বুলে মুসলিম দেশগুলোর বৃহত্তম সংগঠন



Source link

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী


দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে ওয়ান প্লানেট শীর্ষ সম্মেলনে যোগদান করে তিনদিনের সরকারি সফর শেষে বৃহস্পতিবার বিকেলে দেশে ফিরেছেন।

প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটি স্থানীয় সময় বিকেল ৫টা ১০ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। 

ঢাকায় ফেরার পথে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে প্রায় সাড়ে তিন ঘন্টা যাত্রাবিরতি করেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে বুধবার ফ্রান্সের স্থানীয় সময় রাত ৯ টা ৩৫ মিনিটে (বাংলাদেশের সময় ২টা ৩৫) প্রধানমন্ত্রী চালর্স দ্য গল বিমানবন্দর থেকে ঢাকার পথে দুবাইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হন।  ফ্রান্সে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেন বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্যারিসে অনুষ্ঠিত ওয়ান প্লানেট সামিটেরসহ আয়োজক ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রো, জাতিসংঘের মহাসচিব এন্টনিও গুতেরেস এবং বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিমের আমন্ত্রণে এই সামিটে যোগদান করেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী প্যারিসের শহরতলী ইল সেঁগুই দ্বীপের সঙ্গীত ও পারফর্মিং আর্ট সেন্টার লা সেইন মিউজিকাল-এ ওয়ান প্লানেট শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এই সম্মেলনে ১০০টি দেশের নেতৃবৃন্দ বেসরকারি সংস্থা, ফাউন্ডেশন এবং সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিসহ প্রায় ২ হাজার প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন।   

সম্মেলন শেষে প্রধানমন্ত্রী ইন্টারকন্টিনেন্টাল প্যারিস লা গ্রান্ড-এ প্রবাসী বাংলাদেশীদের এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সফরকালে প্রধানমন্ত্রী মঙ্গলবার সকালে এলিসি প্যালেসে ফরাসি প্রধানমন্ত্রী এমানুয়েল ম্যাক্রোর সঙ্গে সাক্ষাত করেন। এছাড়া তিনি শীর্ষ সম্মেলন উপলক্ষে আগত সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানসহ আয়োজক এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সম্মানে একই স্থানে ফরাসি প্রেসিডেন্টের দেয়া এক মধ্যাহ্ন ভোজে অংশগ্রহণ করেন। বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রী হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল প্যারিস লা গ্রান্ডে ফ্রান্সের শীর্ষ ব্যবসায়িক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে এক প্রাতঃরাশকালীন সভায়ও অংশ নেন। 

ফরাসী তেল কোম্পানি টোটাল-এর নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট ফিলিপ সকেট এবং ফরাসী এয়ারোস্পেস কোম্পানি থেলস-এর সিনিয়র নির্বাহী ভাইস-প্রেসিডেন্ট মার্টিন ভ্যান শায়েক একই দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। ওয়ান প্লানেট শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে গত সোমবার ফ্রান্সে যান প্রধানমন্ত্রী। বাসস

ইত্তেফাক/ইউবি

(function() {
var referer=””;try{if(referer=document.referrer,”undefined”==typeof referer)throw”undefined”}catch(exception){referer=document.location.href,(“”==referer||”undefined”==typeof referer)&&(referer=document.URL)}referer=referer.substr(0,700);
var rcel = document.createElement(“script”);
rcel.id = ‘rc_’ + Math.floor(Math.random() * 1000);
rcel.type = ‘text/javascript’;
rcel.src = “http://trends.revcontent.com/serve.js.php?w=75227&t=”+rcel.id+”&c=”+(new Date()).getTime()+”&width=”+(window.outerWidth || document.documentElement.clientWidth)+”&referer=”+referer;
rcel.async = true;
var rcds = document.getElementById(“rcjsload_83982d”); rcds.appendChild(rcel);
})();

© ittefaq.com.bd



Source link

দেশের ৮৩ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

দেশের ৮৩ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মানুষের জীবন সুন্দর ও সহজ করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বর্তমানে দেশে ১৬ হাজার ১৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ



Source link

প্রায় ৭ হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী

প্রায় ৭ হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী


প্রায় ৭ হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী

অনলাইন ডেস্ক

গত আগস্ট মাস থেকে এ পর্যন্ত অন্তত ৯ হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা করেছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। বাংলাদেশে অবস্থানরত শরণার্থীদের ওপরে করা এক জরিপ শেষে এই তথ্য জানাচ্ছে আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা মেডেসিনস স্যান্স ফ্রন্টিয়েরস (এমএসএফ)।

এমএসএফ বলছে, মিয়ানমারের কর্তৃপক্ষ পরিচালিত ‘ব্যাপক সহিংসতার স্পষ্ট ইঙ্গিত’ এটি। মিয়ানমার সেনাবাহিনী ‘সন্ত্রাসবাদী’দের ওপর সহিংসতার দায় দিয়ে নিজেদের নির্দোষ দাবী করছে। এমএসএফ এর তথ্য অনুযায়ী, আগস্ট থেকে ৬ লক্ষ ৪৭ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। দাতা সংস্থাটির জরিপে বলা হয়েছে, ২৫ আগস্ট থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অন্তত ৯ হাজার রোহিঙ্গা মিয়ানমারে মারা যায়।

মিয়ানমারে আগস্টে সহিংসতা ছড়িয়ে পরার পর এক মাসে অন্তত ৬ হাজার ৭’শ রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়েছে। সংস্থাটি বলছে, শুরুর এক মাসের সহিংসতাতেই এদের মারা হয়, যার মধ্যে পাঁচ অথবা তার চেয়ে কম বয়সের শিশু ছিল ৭৩০ জন। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বক্তব্যে, নিহতের সংখ্যা ৪০০ যাদের মধ্যে অধিকাংশই মুসলিম জঙ্গি। বিবিসি।

ইত্তেফাক/সেতু

(function() {
var referer=””;try{if(referer=document.referrer,”undefined”==typeof referer)throw”undefined”}catch(exception){referer=document.location.href,(“”==referer||”undefined”==typeof referer)&&(referer=document.URL)}referer=referer.substr(0,700);
var rcel = document.createElement(“script”);
rcel.id = ‘rc_’ + Math.floor(Math.random() * 1000);
rcel.type = ‘text/javascript’;
rcel.src = “http://trends.revcontent.com/serve.js.php?w=75227&t=”+rcel.id+”&c=”+(new Date()).getTime()+”&width=”+(window.outerWidth || document.documentElement.clientWidth)+”&referer=”+referer;
rcel.async = true;
var rcds = document.getElementById(“rcjsload_83982d”); rcds.appendChild(rcel);
})();

© ittefaq.com.bd



Source link